রিয়ার ঋণশোধ পার্ট – ০৭

রিয়ার ঋণশোধ ০৭

৬ম পর্ব এখানে

দীপঙ্করের হাত ধরে তারক এবার চলে যেতে থাকে।

“ওয়েট!” রিয়া ডেকে ওঠে, তার গলায় আর আত্মবিশ্বাসের ছিটেফোঁটাও ছিল না “কি বলতে চাইছ” মিঃ ঠাকুর ছিলেন স্টুডেন্ট সুপারভাইজার ইন চার্জ। রিয়া ভয় পাচ্ছিলো সে জানতো ছাত্র যুগল কি বলতে চাইছে।

তারক ঘুরে ওর দিকে তাকায় “আমরা মিঃ ঠাকুর কে বলতে চলেছি গত সপ্তাহের ব্যাপার! উনি নিশ্চই খুব খুশি হবেন শুনে!”

রিয়ার এবার সত্যিই ভয় লাগে; ঠাকুর শুনলে তাকে এক্সপেল করবেই!

“যদি না…” তারক ধূর্ত শিয়ালের মতো বলে ওঠে…

“কি?” রিয়া জানতো কি। সে অন্যমনস্ক ভাবে তার চার্ম ব্রেসলেট নিয়ে নারাচারা করতে থাকে। যেখানে প্রায় ১২টি ‘F’ ঝুল ছিলো।

“যদি না তুমি আবার ভালো হয়ে যাও!” তারক বাক্য শেষ করে “আগের সপ্তাহের মতো!”

রিয়া ওদের দুজনের দিকে তাকায়, তারককে আত্মবিশ্বাসী এবং দীপঙ্করকে ভয়ার্ত অথচ আশান্বিত লাগছিল। সে হাল ছেড়ে দেয়। তাকে এই দুই আঠারো বছরের তরুনের ব্যক্তিগত বেশ্যায় পরিণত হতে হবে। কিন্তু কিই বা করতে পারে সে?

“যদি আমি রাজি হই.” ধীরে ধীরে রিয়া বলে “তোমরা এ নিয়ে কিছু বলবে না! একদম চুপ থাকবে! কেউ যেন জানতে না পারে!”

তারক সাফল্যে হেসে ওঠে।

“ওকে, এটা আমাদের লিটল সিক্রেট থাকবে!” দীপঙ্করের কিশোর সুলভ মুখে একটা হাসি ফুটে ওঠে এবার।

“আর জাস্ট একবার!” রিয়া বলে “এর পর আর তোমাদের এ বিষয়ে কিছু বলতে শুনবো না তো?”

তারক মাথা নারতে শুরু করে, সাফল্যের আনন্দে সবেতেই রাজি হয়ে, কিন্তু এবারে দীপঙ্কর বাধা দেয় “প্রত্যেক সপ্তাহে একবার!” সে বলে রিয়াকে “শুক্রবারে ক্লাসের শেষে।”

রিয়ার মুখ হাঁ হয়ে যায়, সে দুদিকে মাথা নাড়ে…

“ওকে,” দীপঙ্কর কাঁধ নেড়ে তারকের দিকে তাকায় “চল ঠাকুরের সাথে দেখা করি!”

This content appeared first on new sex story .com

সে হাঁটতে শুরু করে, সাথে অবাক হয়ে যাওয়া তারককে নিয়ে। এবারে দুজনে বেশ কিছু পথ হেঁটে যাবার পর রিয়া ডেকে ওঠে। কাঁপতে কাঁপতে সে সম্মতি জানায় তাদের দাবিতে। ঠাকুরের কাছে কিছুতেই যেতে দেওয়া যাবে না ওদের!

দশ মিনিট পর:

রিয়া, নগ্না, জিমের ম্যাট্রেসের উপর শুয়ে ছিল চিত্ হয়ে, দীপঙ্কর তার যোনি মন্থন করছিলো নিজের পুরুষাঙ্গ চালনা করে। তারক নিজের পলার জন্য অপেক্ষা করছিলো। মানিকজোড় এবার রিয়াকে নগ্ন অবস্থায় পেতে চেয়েছিলো, এবং রিয়ার নিজের প্যান্ট আর শার্ট, ও অন্তর্বাস ছেড়ে ফেলা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। দীপঙ্করের প্রতিটি ধাক্কায় সে গুমরিয়ে উঠছিলো, এবং গুঙিয়ে উঠছিলো দীপঙ্করের দুটি হাত তার নগ্ন স্তনদুটি কঠিন ভাবে নিষ্পেষিত করে যাওয়ায়। কিন্তু সে প্রতিবাদ করে উঠলো না, যখন দীপঙ্কর স্খলন করতে শুরু করলো তার অভ্যন্তরে।

তবে সে চোখের জল ফেলতে শুরু করেছিলো যখন তারক উঠে এসেছিলো তার উপর দীপঙ্করের পালা শেষ হবার পর, এবং তার সিক্ত যোনির মধ্যে নিজের পুরুষাঙ্গ গুঁজতে শুরু করেছিলো।
More from Bengali Sex Stories

Leave a Reply