মিমের ডায়েরী কলেজের বড় ভাই

হ্যাল বন্ধুরা, কেমন আছো তোমরা। আমি এস.এস.ছি. শেষ করে একটা সনামধন্য সরকারী মহিলা কলেজে ভর্তি হলাম। আমার কিছু বন্ধুরা সরকারি কলেজ সহ বিভিন্ন প্রাইভেট কলেজে ভর্তি হল। আমি আমার বান্ধুবি নয়নার সাথে সরকারী কলেজের নবিন বরন অনুষ্ঠান এ গেলাম। অনুসঠানে অনেকের সাথেই পরিচয় হয়। অইসময় কলেজের ছাত্রলীগ নেতা সাগর ভাইর সাথেও পরিচয়। উনি কেমন জানো একটা কামুক চাহনি দিয়ে আমার দিকে তাকিয়ে দেখল আমাকে। আমি ওটাকে ছেলেদের সহজাত প্রব্রিতি ভেবে ইগ্নোর করলাম। যাইহোক আরও বিভিন্ন বান্ধুবিদের সাথে তাদের কলেজের নবীনবরন অনুসঠানে যোগ দিলাম। সেখানেও সেইম অবস্থা। সিনিয়র বড় ভাইরা আমাদের মত জুনিয়র মেয়েদের সাথে গায়ে পড়ে পরিচিত হয়, তাদের বিভিন্ন পাওয়ার নিয়ে গল্প শুনায়। আমরাও তাদের কথা অনিচ্ছাসত্ত্বে ও শুনতে লাগলাম। এভাবে দেখতে দেখতে কয়েকমাস কেটে গেলো। এরিমধ্য সরকারী কলেজে কনসার্ট এর ডেট পড়ল। আমরা বান্ধুবিরা সবাই সকাল থেকেই কলেজে হাজির। দুপরে সাগর ভাইর সাথে দেখা হল। ভাই তার সাংগপাংগ নিয়ে যাচ্ছিল। আমাদের দেখে থেমে ভাইয়া খোজ নিলো সবার। আমি ভাইয়াকে সাম্নের সারিতে জাওয়ার আর জেমসের সাথে সেল্ফি তোলার আবদার করলাম। সাগর ভাই তার নাম্বার আমাকে দিলো আর বিকেলবেলা ফোন দিতে বলল। আমিও নাম্বার নিয়ে সেইভ করে রাখলাম। সন্ধ্যা ৭টার দিকে আমরা বান্ধুবিরা সেজেগুজে জেমসকে স্বাগতম জানাতে রেডি হলাম। এরিমধ্য আমার বান্ধুবি নয়না বলল সাগর ভাইর সাথে দেখা করবি? জদি ভাই জেমসের সাথে মিট করাই দেয়।

আমি নয়নার কথায় রাজি হয়ে সাগর ভাইকে ফোন দিলাম ভাইয়া কলাভবন এর ৫ম তলায় ২০ মিনিটের মধ্যে আমাকে একা আসতে বলল। আমি দেখলাম সুবর্ণ সুযোগ। আমি নয়নাকে সব খুলে বল্লাম। নয়নাও বান্দুবিদের ভিড় কাটিয়ে আলাদা হল টয়লেট এর কথা বলে। আমাদের সাথের বান্ধুবিরা তখনো লোকাল শিল্পি দের গান শুনতে লাগলো। ততক্ষণ এ আমি আর নয়না কলাভবন এর নিচতলায় হাজির। দুই বান্ধুবি কথা বলতে বলতে উপরে উঠতে লাগলাম। বিভিন্ন ফ্লোরে সিরিতে ফ্লোরের চিপায় বিভিন্ন কাপলদের আন্তরংগভাবে দেখতে দেখতে উপরে উঠলাম। ৪থ তলা প্রায় খালিই আর ৫ম তলায় সিরিতে নয়নাকে দার করিয়ে রেখে। আমি সাগর ভাই দেয়া তথ্যমতে ৫১৭ নাম্বার রুম খুঁজতে লাগলাম। একটু হেটেই রুম খুঁজে পেলাম রুমের সামনে গিয়ে দরজা নক দিয়ে ঢুকলাম। রুমে ঢুকে দেখি রুম ধোয়ায় অন্ধকার। আমি রুমে গেলে ভাইয়া তার চেলাদের ইশারা দিয়ে বাইরেবাহির হতে বলে। সাথেসাথে তার ৩জন চেলা রুম থেকে বেড় হয়ে জায়। আর রুম বাইরের দিকে লক করে দেয়। এরপরে ভাইয়া আমাকে আমার পরিচয় জিজ্ঞেস করে আমিও পরিচয় দিলাম। আমার পড়াশুনো র খোজ নিতে লাগলো। আমিও ভাইয়ার সব প্রস্নের উত্তর দিতে লাগলাম। এরিমধ্য ভাইয়া কোথায় জেনো কল দিলো। তারপর ভাইয়া বললেন যে – জেমস ৯টায় আসবে আর ১০টায় মঞ্চে উঠবে। আমি ভাইয়াকে জেমসের সাথে মিট করিইয়ে দিতে রিকুয়েস্ট করতে থাকি। ভাইয়া তার পকেট থেকে একটা ভলান্টিয়ার কার্ড বেড় করে আমাকে দেয়।

This content appeared first on new sex story . com

More from Bengali Sex Stories

Please share your feedback, your comment is the only payment authors get

Published by

Hasan Zubayer

হাই আমি যুব, আমার জীবনের সাথে ঘটে জাওয়া ঘটনাগুলো এখানে শেয়ার করব। এখানে সব সত্যি ঘটনা শেয়ার করছি তাই সবার মত এখানে কোন রংচং মেখে রসালো করা হয়না,তাই অনেকে মজা পাবেন না।
View all posts by Hasan Zubayer

Leave a Reply